রবিবার ১৬ জুন ২০২৪
Space Advertisement
Space For advertisement


কুমিল্লায় মশলা বাজারে অস্থিরতা


আমাদের কুমিল্লা .কম :
25.05.2023

মোস্তাফিজুর রহমান ।। সারাদেশে অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম। দাম বৃদ্ধির উৎসবে থেমে নেই কুমিল্লাও। মাছ,মাংস, কাঁচাবাজার থেকে শুরু করে সকল পণ্যের ক্রয় ক্ষমতা এখন সাধারণের নাগালের বাহিরে। এর সাথে হঠাৎ করেই হু হু করে বাড়ছে মশলা বাজার। এরই মধ্যে রেকর্ড করেছে আদা আর জিরা।
গতকাল কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন বাজার সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়। এক সপ্তাহের ব্যবধানে আদা প্রতি কেজিতে বৃদ্ধি পেয়েছে ১০০ টাকা। ২২০ টাকার আদা বিক্রি হচ্ছে ৩২০ টাকা। আর ৭০০ টাকার জিরা বিক্রি হচ্ছে ৯০০ টাকা। এছাড়াও সকল প্রকার মশলার দাম বেড়েছে ৫০ থেকে ২০০ টাকা পর্যন্ত।
হঠাৎ করে মশলা বাজার অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে সৃষ্টি হয়েছে নানা ক্ষোভ। বাজার করতে আসা মানুষের এখন নাভিশ্বাস অবস্থা।
নগরীর চকবাজারে বাজার করতে আসা রুহুল আমিন বলেন, আমি বাজারে এসে জিনিস পত্রের দাম শুনে অবাক হয়ে গেছি। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে এক একটা পণ্যের দাম ডাবল হয়ে গেছে। আদার কেজি ৩২০ আর জিরা ৯০০ টাকা এগুলো কোন কথা! আমার মনে হয় প্রশাসন গরীবের কথা চিন্তা করে একটু ভালো ভাবে নজর দিলে এভাবে অস্বাভাবিক হারে জিনিসপত্র বাড়ানোর সাহস পাবে না।
রাজগঞ্জ বাজারে বাজার করতে আসা মিজান বলেন, বাজার যতই বাড়ুক বড়লোকদের তো কোন সমস্যা হয় না, যত সমস্যা আমাদের মতো গরীবের। আগে আদা নিতাম ২৫০ গ্রাম এখন নেই ৫০ গ্রাম। আর কিছু দিন পরে মশলা খানাও ছেড়ে দিতে হবে।
চকবাজারের মুদি বিক্রেতা মো. রফিক মিয়া বলেন, পাইকারি বাজারে একটি একটি করে সব ধরনের পণ্যের দাম বেড়েছে। যে কারণে আমাদের সব পণ্য আনতে বেশি টাকা খরচ হচ্ছে। বিক্রিও করতে হচ্ছে বেশি দামে। তবে আমি বিক্রেতা হলেও দিনশেষে আমি ক্রেতা। আমারও কোনো না কোনো পণ্য বেশি দরেই কিনতে হচ্ছে।
রাজগঞ্জ বাজারের খুচরা বিক্রেতা শাকিল বলেন, জিনিস পত্রের দাম বাড়লে আমাদেরই ক্ষতি হয়। মানুষের চাহিদা কমে যায়। জিনিসপত্রের দাম কম থাকলে আমাদের যেই লাভ হয় দাম বাড়লেও একই লাভ হয়। দাম কম থাকলে আমাদের জন্য সুবিধা কারণ মানুষের চাহিদা থাকে বেশি।

কুমিল্লা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো.আসাদুল ইসলাম বলেন,প্রতিদিনই আমাদের বাজার মনিটরিং চলছে । কিছু কিছু পণ্যের সরবরাহ কম থাকায় এই জিনিস পত্রের দাম বাড়ছে। তবে কেউ যদি কারসাজি করে কোন পণ্য লুকিয়ে রাখে এবং কম দামে ক্রয় করে বেশি দামে বিক্রি করে তাহলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করি বাজার গুলোকে নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য।