বুধবার ১০ GwcÖj ২০২৪
Space Advertisement
Space For advertisement
  • প্রচ্ছদ » sub lead 3 » শাশুড়ির অত্যাচার সইতে না পেরে পুত্রবধূর আত্মহত্যা!


শাশুড়ির অত্যাচার সইতে না পেরে পুত্রবধূর আত্মহত্যা!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
21.04.2023

সোহাইবুল ইসলাম সোহাগ ।। কুমিল্লায় শাশুড়ির অত্যাচারে ছেলের বউয়ের আত্মহত্যার খবর পাওয়া গেছে।
শাশুড়ির অত্যাচার সইতে না পেরে গলায় ফাঁস লাগিয়ে বৃহস্পতিবার (২০ শে এপ্রিল) কুমিল্লা সদর দক্ষিণের বিজয়পুর ইউনিয়নের বিজয়পুর উত্তর পাড়ার আর্মির বাড়িতে আত্মহত্যা করেছেন তামান্না আক্তার চৈতী(২২) নামে এক নারী। এ বিষয়ে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন মেয়ের পরিবার।
এর মধ্যে মরদেহ উদ্ধার করে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানা পুলিশ কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
জানা গেছে,৭ থেকে ৮ মাস আগে মধ্যমবিজয়পুর এলাকার চান মিয়ার বড় ছেলে সৌদি প্রবাসী মিজানুর রহমানের সাথে বিয়ে হয়।তাদের সংসার ঠিকঠাক চলছিল। ৩ মাস পূর্বে ছেলে সৌদি আরব চলে গেলে শাশুড়ি ছেলের বউকে যৌতুকের জন্য চাপ দেয়।এরপরে চলে অশান্তি। এ নিয়ে এলাকায় বিচার শালিশী করেন এলাকাবাসী। পরে এতে শাশুড়ি ও ছেলের বউয়ের সাথে আর ঝগড়া করবেনা এমন প্রতিশ্রুতি হয়। বৃহস্পতিবার সকালে আবার শাশুড়ির সাথে ঝগড়া হলে বউ চৈতী ঘরের ভিতরে ফ্যানের সাথে ঝুলিয়ে আত্মহত্যা করে।
এ বিষয়ে শাশুড়ি ফেরদৌসী আক্তার বলেন,আমি আমার ছেলের বউয়ের সাথে কোনো ঝগড়া করিনি। সকালে আমার সাথে একটু কথা-কাটাকাটি হয়।পরে সে ঘরে দৌঁড় দিয়ে চলে যায়।আমিও পিছনে গেলে দরজাটা আটকিয়ে দেয়।পরে ফ্যানের সাথে সুতার কাপড় গলায় দিয়ে ফাঁসি দেয়।পরে পুলিশ দরজা ভেঙ্গে লাশ বের করে।
মেয়ের মা তামান্না বলেন,আমার সাথে মেয়ের শাশুড়ি এতো যোগাযোগ করতে দিতনা। বৃহস্পতিবার সকালে মেয়ে কল দিলে শুধু চিল্লাচিল্লি শুনি। পরে কল কেটে দেয়। কিছুক্ষণ পর আমাকে কল করে জানায় আমার মেয়ে আত্মহত্যা করেছে।আমি আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই।
কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ দেবাশীষ চৌধুরী বলেন, লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।অভিযোগ অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।