রবিবার ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
Space Advertisement
Space For advertisement
  • প্রচ্ছদ » sub lead 2 » কুমিল্লায় পতাকা ও জার্সি বিক্রিতে শীর্ষে আর্জেন্টিনা,পিছিয়ে নেই ব্রাজিলও


কুমিল্লায় পতাকা ও জার্সি বিক্রিতে শীর্ষে আর্জেন্টিনা,পিছিয়ে নেই ব্রাজিলও


আমাদের কুমিল্লা .কম :
14.11.2022

রুবেল মজুমদার ।। বিশ্বকাপ ফুটবল মাঠের গড়ানোর বাকি আছে আর ছয়দিন।এর মাঝে শুরু হয়েছে কুমিল্লায় বিশ্বকাপের উন্মাদনা। বিশ্বকাপ ফুটবলের উচ্ছ্বাস, উন্মাদনা, উত্তেজনায় আছড়ে পড়েছে ঐতিহ্য নগরী কুমিল্লাতে। ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনার দূরত্ব কুমিল্লা থেকে হাজার হাজার কিলোমিটার হলেও এই দুই দলকে নিয়ে কুমিল্লাবাসীর আনন্দ, উচ্ছাসের নেই কোন কমতি। কুমিল্লা মহানগরীসহ পুরো জেলায় ফুটবল প্রেমীদের মধ্যে হিড়িক পড়েছে পছন্দের দলের জার্সি ও পতাকা কিনার জন্য। কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন দোকান ও ফুটপাতে মৌসুমী পতাকা ও জার্সি বিক্রেতাদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, গতকাল রোববার পর্যন্ত পতাকা ও জার্সি বিক্রিতে শীর্ষে রয়েছে আর্জেন্টিনা আর দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্রাজিল। এরপরও রয়েছে জার্মানি।

বিশ্বকাপ এলেই যেন এক ধরনের ফুটবল উন্মাদনা সৃষ্টি হয় এ নগরীতে। কুমিল্লা শহরসহ ১৭টি উপজেলার পথে-ঘাটে দেখা যাচ্ছে ভ্রাম্যমাণ পতাকা বিক্রেতাদের। তবে এবার পতাকার পাশাপাশি বিভিন্ন দলের ফুটবলারদের জার্সি বিক্রিও চলছে। শহরের বিভিন্ন দোকানে জার্সি কেনাবেচায় সবকিছু ছাড়িয়ে চাহিদার শীর্ষে রয়েছে আর্জেন্টিনা দলের জার্সি। তবে পিছিয়ে নেই ব্রাজিল ও জার্মানি।
২০ নভেম্বর থেকে শুরু হবে ফুটবল বিশ্বকাপ। ফুটবলপ্রেমী মানুষের মন থেকে ফুটবলের আনন্দ কমে না। বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া বিভিন্ন দেশের পতাকা বিক্রির ধুম পড়েছে এ শহরে। এরই মধ্যে দেখা যাচ্ছে বিশ্বকাপ ফুটবলের আমেজ। অধীর অপেক্ষায় দিন গুনছেন ফুটবলপ্রেমীরা। নিচ্ছেন প্রিয় দলকে সমর্থনের প্রস্তুতিও। প্রিয় দলের পতাকা ও জার্সি সংগ্রহ করছেন অনেকে।
রবিবার(১৩ নভেম্বর) বিকালে নগরীতে ঘুরে দেখা যায়,কুমিল্লার বিভিন্ন জায়গায় ভ্রাম্যমাণ মৌসুমী ব্যবসায়ীরা ফেরি করে পতাকা বিক্রি করছেন । তারা কুমিল্লাসহ উপজেলার বিভিন্ন ফুটপাতে দাঁড়িয়ে কিংবা পথে হেঁটে হেঁটে পতাকা বেঁধে বিক্রি করে চলছেন। এমন বিক্রেতার সংখ্যা শতাধিক বলে তারা জানায়।
নগরীর ঝাউতলা এলাকায় ফেরি করে পতাকা ও জার্সি বিক্রি করতে এসেছেন গাজীপুর থেকে জসিম। তিনি জানান, প্রতি বিশ্বকাপ খেলার আগে আমি পতাকা বিক্রি করতে গাজীপুর থেকে কুমিল্লা আসি। গত ১২ দিন ধরে আমি কুমিল্লা এসেছি। আসার পর বেচা-কেনা কম ছিল। কিন্তু এখন দিন ঘনিয়ে আসায় বিক্রি বেড়ে গেছে। তার মতে, ১৫ তারিখের পর বিক্রি আরো বেড়ে যাবে। কোন দলের পতাকা বেশি বিক্রি হচ্ছে জানতে চাইলে নগরীর চকবাজারের শাপলা সুপার মার্কেটে পতাকা বিক্রি করা মহিউদ্দিন শেখ বলেন, আমরা নবীনগর থেকে ৭ জন এসেছি কুমিল্লায় পতাকা বিক্রি করতে। আমাদের ৭ জনের হিসাব মতে কুমিল্লায় আর্জেন্টিার পতাকা বিক্রি হচেচ্ছ সবচেয়ে বেশী। এর পর স্থানে রয়েছে ব্রাজিল। এরপর অল্প অল্প বিক্রি হচ্ছে জার্মানি, স্পেন।
প্রকারভেদে প্রতিটি পতাকা বিক্রি করছেন ৬০ টাকা থেকে ১৬০ টাকা পর্যন্ত। এবার শহরের মত গ্রামেও ভলো পতাকা বিক্রি হচ্ছে বলে জানান মহি উদ্দিন।
নগরীর নিউমার্কেট এলাকার কাপড় বিক্রেতা তুষার সরকার বলেন, বিশ্বকাপকে সামনে রেখে তরুণ-তরুণীরা জার্সি কিনতে আসছেন। তবে সন্ধ্যায় ভীড় বেশি হয় এখানে। স্কুল ও কলেজ পড়ুয়া ছাত্র বেশি জার্সি কিনছেন। আমাদের দোকানে বাংলাদেশ, আর্জেন্টিনা, জার্মানি, ব্রাজিল, পর্তুগাল ও স্পেনের জার্সি বিক্রি হচ্ছে। তবে সবচেয়ে বেশি বিক্রি হচ্ছে আর্জেন্টিনা। এরপর ব্রাজিল ও জার্মানির জার্সি। প্রতিটি জার্সি কাপড় ভেদে ১০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হচ্ছে।
এছাড়া নগরীর অলি-গলিতে রাস্তা ও বাজারে পায়ে হেঁটে পতাকা বিক্রি করছে ঢাকার সবুজ মিয়া (৪০)। হাতে রয়েছে ছোট, মাঝারি, বড় আকারের বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া বিভিন্ন দেশের পতাকা। হাতের ব্রেসলেট বা রিস্টব্যান্ড, কাগজের পতাকা ইত্যাদি নিয়ে চলছে রাস্তায়। পরিবারে স্বচ্ছলতা ফেরাতে অল্প টাকা লাভে তিনি বিক্রি করছেন পতাকা। বড় আকারের পতাকা ১৫০ থেকে ২০০ টাকা, মাঝারি ১০০ টাকা, ছোট আকারের ২০ থেকে ৩০ টাকা, ও লাঠি পতাকা ১০ টাকা দরে বিক্রি করছেন তিনি।
সবুজ মিয়া জানান, আমার বাড়ি ঢাকা জেলা । আমি সাত বছর যাবত দেশের বিভিন্ন জেলাতে গিয়ে পতাকা বিক্রি করি এখন ফুটবল বিশ্বকাপ শুরু হবে। তাই এখন বিশ্বকাপে অংশ নেওয়া বিভিন্ন দলের পতাকার চাহিদা বেশি।
তিনি আরো জানান, ফুটবল বিশ্বকাপ উপলক্ষে কয়েক দিন আগে তিনি কুমিল্লা এসেছেন । রাস্তায় ঘুরে ফিরে বিক্রি করেন পতাকা। প্রতিদিন গড়ে তার বিক্রি হয় ৩ থেকে ৪ হাজার টাকা। এই পতাকা বিক্রি করেই এক ছেলে, দুই মেয়ে ও স্ত্রী নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করেন।
শহরতলীর ধর্মপুর থেকে জার্সি ও পতাকা কিনতে আসা আরিয়ান তৌফিক জানান, আমি ধর্মপুর থেকে এসেছি । জার্সি ও পতাকা কিনতে। বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা দরজায় কড়া নাড়ছে। তাই আর্জেন্টিনার সমর্থক হয়ে ১৫০ টাকা দিয়ে একটি পতাকা কিনে নিলাম। এরপর নিউ মার্কেট থেকে জার্সি কিনবো। বিশ্বকাপ খেলা ভালো লাগে। আমি আর্জেন্টিনার প্রতিটি খেলা উপভোগ করি।