রবিবার ৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩
Space Advertisement
Space For advertisement


উৎসবমুখর পরিবেশে কুমিল্লা জেলা পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন


আমাদের কুমিল্লা .কম :
18.10.2022

মাহফুজ নান্টু ।। অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মধ্য দিয়ে কুমিল্লা জেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্গনের দায়ে একজনকে সাতদিনের কারাদন্ড ও একজনকে অর্থদন্ড দেয়া হয়। সোমবার সকাল ৯ টা থেকে ২ টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ হয়।
সোমবার বিকেল সাড়ে ৪ টায় কুমিল্লা জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসান ফলাফল ঘোষণা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ দুলাল তালুকদার ও জেলা সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মঞ্জুরুল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেনসহ জেলা প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।
বেসরকারীভাবে সংরক্ষিত বিজয়ী সদস্যরা হলেন, ১ নম্বর ওয়ার্ড (মেঘনা তিতাস ও দাউদকান্দি) জেবুন্নেচ্ছা জীবন । তিনি দোয়াত কলম প্রতীকে পেয়েছেন ১৮৭ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি নুরুন্নাহার ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ১২৭ ভোট।
দুই নম্বর ওয়ার্ড ( হোমনা ও মুরাদনগর) দোয়াত কলম প্রতীকে মোসা মমতাজ বেগম পেয়েছেন ২৫৬ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি পেয়েছেন হরিণ প্রতীকের আফজালুন্নেচ্ছা বাসিত পেয়েছেন ৯৩ ভোট।
তিন নম্বর ওয়ার্ড ( দেবিদ্বার, চান্দিনা ও বরুড়া) ফুটবল প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন শিরিন সুলতানা। তিনি পেয়েছেন ২৩৮ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি মোসাৎ জান্নাতুল ফেরদৌস পেয়েছেন ১৩৪ ভোট।
চার নম্বর ওয়ার্ড ( সদর-বুড়িচং-ব্রাহ্মনপাড়া) দোয়াত কলম প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন এড.ফাহমিদা জেবিন। তিনি পেয়েছেন ১৮৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি লাভলী আক্তার ফুটবল প্রতীকে পেয়েছেন ১৫৯ ভোট।
ছয় নম্বর ওয়ার্ড ( নাঙ্গলকোট-সদর দক্ষিন -চৌদ্দগ্রাম) টেবিল ঘড়ি প্রতীক নিয়ে বিজয়ী হয়েছেন মোসাঃ নাসরিন আক্তার। তিনি পেয়েছেন ৩০৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি ফুটবল প্রতীকে রহিমা আক্তার পেয়েছেন ১৮২ ভোট।
সাধারণ ওয়ার্ডে বিজয়ী হয়েছেন এক নম্বর ওয়ার্ড মেঘনা থেকে মোঃ কাইয়ুম হোসেন ৪১ ভোট। তার নিকতম প্রতিদ্বন্ধি আবুল কালাম বৈদ্যুতিক পাখা নিয়ে পেয়েছেন ৩১ ভোট। দুই নম্বর ওয়ার্ড তিতাস থেকে তালা প্রতিকে ৬৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন দেলোয়ার হোসেন পলাশ। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি সাজ্জাদ হোসেন হাতি প্রতীকে পেয়েছেন ৫২ ভোট। চার নম্বর হোমনা থেকে হাতি প্রতীকে ৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন মোঃ মকবুল হোসেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি কাউছার তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৫৫ ভোট। পাঁচ নম্বর ওয়ার্ড মুরাদনগর থেকে বৈদ্যুতিক পাখায় ২৬৮ ভোট পেয়ে বিজযী মনিরুল ইসলাম। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি হাবিবুল্লাহ লিটন পেয়েছেন ৮ ভোট। ছয় নম্বর দেবিদ্বার থেকে হাতি প্রতীকে বিজযী হয়েছেন বাবুল হোসেন। তিনি পেয়েছেন ১৪০ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৫৬ ভোট। সাত নম্বর ওয়ার্ড চান্দিনা থেকে হাতি প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন মোঃ বজলুর রহমান। তিনি পেয়েছেন ৮৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি মোঃ নুরুল ইসলাম তুহিন বৈদ্যুতিক পাখা নিয়ে পেয়েছেন ৫৫ ভোট। আট নম্বর বরুড়া ওয়ার্ড মোঃ জসিম উদ্দিন হাতি প্রতীকে পেয়েছেন ১১৫ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি আখতারুজ্জামান ঘুড়ি প্রতিকে পেয়েছেন ৯২ ভোট। দশ নম্বর ওয়ার্ড বুড়িচং টিউবওয়েল প্রতীকে ৬৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন মশিউর খান। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি তারেক হায়দার হাতি প্রতীকে পেয়েছেন ২৮ ভোট। এগার নম্বর ওয়ার্ড ব্রাহ্মনপাড়া থেকে হাতি প্রতীকের সাইফুল ইসলাম। তিনি পেয়েছেন ৪৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি পেয়েছেন সুলতান আহমেদ তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৪৩ ভোট।
চৌদ্দ নম্বর ওয়ার্ড লালমাই থেকে তালা প্রতীকে বিজয়ী হয়েছেন মোঃ আমির হোসেন। তিনি পেয়েছেন ৪৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি মোঃ বিল্লাল হোসেন পেয়েছেন ৪৬ ভোট।
পনের নম্বর ওয়ার্ড নাঙ্গলকোট থেকে আবু বকর সিদ্দিকী ঢোল প্রতীকে ১৫৯ ভোট বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতীদ্বন্ধি তৌহিদুর রহমান তালা প্রতীকে পেয়েছেন ৩৫ ভোট। ।
সতের নম্বর ওয়ার্ড চৌদ্দগ্রাম থেকে টিউবওয়েল প্রতীকে এমরানুল হক কামাল ৫৯ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্ধি বক প্রতীকে মোঃ মুহিবুল আলম মজুমদার পেয়েছেন ৪৮ ভোট।
উল্লেখ্য, কুমিল¬ায় চেয়ারম্যানসহ ৫ সদস্য বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। তাই আজ ১৭টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১২টি ওয়ার্ডে এবং ৬টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের মধ্যে ৫টিতে ভোট গ্রহণ চলছে। ১২টি সাধারণ ওয়ার্ডে ৪৭ জন এবং পাঁচটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ১৮ জন প্রার্থী হয়েছেন। মোট ভোটার হলো ২৬৭৯ জন।