বুধবার ১৮ †g ২০২২
Space Advertisement
Space For advertisement


ঝড় তুলবে পুষ্পা ও কাঁচা বাদামের থ্রি-পিস!


আমাদের কুমিল্লা .কম :
07.04.2022

সাইমুম ইসলাম অপি ।। রোজার ৬দিন গত হলেও এখনো জমে উঠেনি কুমিল্লার ঈদ বাজার। তবে আসন্ন ঈদ বাজারকে কেন্দ্র করে কুমিল্লা নগরীর অভিজাত বিপণী বিতান গুলো নতুন নতুন কালেকশনে পরিপূর্ণ রয়েছে। নানান রকমের দৃষ্টিনন্দন আকর্ষণীয় কালেকশানে সাজানো হয়েছে প্রত্যেকটি শপিংমল। মেয়েদের জন্য এবারের অন্যতম আকর্ষণ পুষ্পা ও কাঁচা বাদাম। বাহারী রঙ্গের পুষ্পা ও কাঁচা বাদাম এর থ্রি-পিস ইতিমধ্যে আগ্রহী ক্রেতাদের মধ্যে বেশ সাড়া ফেলতে সক্ষম হয়েছে। পুষ্পা ও কাঁচা বাদামের এখনো তেমন বিক্রি না বাড়লেও আগ্রহীরা মার্কেটে আসছেন।
বিক্রেতারা ভালো বিক্রির আশা করছেন। বিক্রেতাদের আশা রোজা বাড়ার সাথে সাথেই বাড়বে তাদের বিক্রি। এবারের ঈদ মার্কেটে ঝড় তুলবে পুষ্পা ও কাঁচা বাদামের থ্রি-পিস।

গতকাল বুধবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন বিপণী বিতান ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি দোকানেই কম বেশি ক্রেতা আসছে। অনেকেই দেখে যাচ্ছেন, কেউবা দাম জেনে যাচ্ছেন। আবার দাম এবং পছন্দ মিল হলে কেউ কেউ নিয়েও যাচ্ছেন। নগরীর অভিজাত বিপণী বিতান মনোহরপুরের খন্দকার হক টাওয়ার ও সাত্তার খান কমপ্লেক্সে মোটামুটিভাবে লোক সমাগম ও ঈদের বেচাকেনা শুরু হয়েছে। অপরদিকে রেইসকোর্সে অবস্থিত ইস্টার্ন ইয়াকুব প্লাজায় এখনও তেমন শুরু হয়নি ঈদের বেচাকেনা।

সরেজমিনে নগরীর শপিংমলগুলো পরিদর্শন করে জানা যায়, এবার পাঞ্জাবির অন্যতম আকর্ষণ রাজশাহী সিল্ক, সুলতানি, প্রিন্স, নকশি প্রভৃতি। সর্বনিম্ন একহাজার থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ পঁচিশ হাজার পর্যন্ত।

কিডস আইটেমের মধ্যে রয়েছে, টপস, থ্রি-পিস, লেহেঙ্গা প্রভৃতি। যার মূল্য সর্বনিম্ন ৬০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৪,৫০০ টাকা পর্যন্ত।
এবার ঈদে ছেলেদের অন্যতম আকর্ষণ পেপে প্যান্ট যার মূল্য ১০,৫০০ টাকা। উঠানো হয়েছে জন লেংফোর্ড, জিকিউ, এলেইন ডেলন ও জিফিনিসহ অনেক ধরনের টি-শার্ট। যার মূল্য ৪,৮০০ থেকে ৬,৫০০ পর্যন্ত।

ঈদের বিশেষ শো-আইটেম সেন্ডেল ১,৮৯০ টাকা, স্লিপার ওয়াটার প্রোপ ৮৯০ টাকা, হাফ সু-কালেকশান ২২৯০ টাকা, লুফার ২৬৯০ টাকাসহ প্রভৃতি কালেকশান এবারের মেইন শো আইটেম।

সাত্তার খান কমপ্লেক্সের কাপড় বিক্রেতা সাইফুল ইসলাম বলেন, ঈদের বেচাকেনার সকল প্রস্তুতি শেষ। ঈদের বেচাকেনা তেমন শুরু হয়নি। আশা করি এবার ভালো বিক্রি হবে। করোনার কারণে গত কয়েক বছর তেমন বেচাকেনা হয়নি। তবে আশা করা যায় পূর্বের সমস্যা কাটিয়ে এবার ভালো উপার্জন করতে পারবো।

খন্দকার হক টাওয়ারের বিক্রেতা অজিৎ বলেন, সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে বিগত দু’বছরের সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবো। মার্কেটে যারা আসে তারা কেনার জন্য আসে। না কিনলে বুকিং দিয়ে যায়। কিছুদিন গেলে বিক্রি পুরোদমে শুরু হবে।

দুপুর ২টায় ইস্টার্ন ইয়াকুব প্লাজায় এসেছেন ব্যাংক কর্মকর্তা আবু হানিফ। বিভিন্ন থ্রি-পিসের দোকান ঘুরছেন আর বিভিন্ন স্টাইলের থ্রি-পিস দেখছেন। ঈদ মার্কেট সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখন তো আর আমাদের ঈদ নেই। ছেলে মেয়ে বড় হয়েছে এখন তাদের আনন্দই আমার আনন্দ। মেয়ে দশম শ্রেণীতে পড়ে। ব্যাংকের কাজের ফাঁকে মার্কেটটি দেখে গেলাম। ঈদ উপলক্ষে কি রকম কালেকশন আছে ব্যবসায়ীদের কাছে। তবে তিনি জানান, কাঁচা বাদাম থ্রি-পিস কেনার কথা বলছে মেয়ে।
পুস্পা আর কাঁচা বাদামের দাম কত চেয়েছে জানতে চাইলে এই ব্যাংক কর্মকর্তা বলেন, ৫ হাজার থেকে ৬ হাজার টাকার মধ্যে চাচ্ছে।